E Passport

পাসপোর্ট হয়েছে কিনা চেক করার নিয়ম | E Passport Check Online

অনলাইনে ই পাসপোর্ট করার নিয়ম । পাসপোর্ট হয়েছে কিনা চেক করার নিয়ম | E Passport Check Online

  • ই পাসপোর্ট অনলাইনে আবেদন করার জন্য , পাসপোর্ট হয়েছে কিনা চেক করার নিয়ম | E Passport Check Online, Bangladesh e-Passport Application Portal ওয়েবসাইট ভিজিট করুন- www.epassport.gov.bd এবং মেনু থেকে “Apply Online” অপশনটি বাছাই করে, আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস এবং থানা নির্বাচন করুন। একটি সচল ইমেইল এড্রেস এবং নিজের ব্যক্তিগত তথ্য সহ পিতা-মাতা তথ্য ও জরুরী যোগাযোগের ঠিকানা পূরণ করতে হবে। পাসপোর্টের মেয়াদ এবং ডেলিভারি ধরন নিশ্চিত করে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে।
  • অনলাইনে ই-পাসপোর্ট আবেদন করার সংক্ষিপ্ত বর্ণনা সম্পর্কে জেনেছি, এখন আমরা দেখবো কিভাবে ধাপে ধাপে অনলাইনে আবেদন সম্পন্ন করতে হয়।

ই পাসপোর্ট করতে কি কি লাগে

ই পাসপোর্ট অনলাইনে আবেদন করার জন্য কোন কাগজপত্র আপলোড করতে হয় না তবে পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তা যাচাই-বাছাই করতে কিছু কাগজপত্র চেয়ে থাকে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে মূল জাতীয় পরিচয় পত্র, ই পাসপোর্ট আবেদনের অনলাইন কপি, নাগরিক সনদ।

  • জাতীয় পরিচয়পত্র / অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ
  • আবেদন সামারী (Application Summery)
  • ই পাসপোর্ট আবেদন কপি
  • ইউটিলিটি বিলের কপি (গ্যাস/বিদ্যুৎ)
  • পিতা-মাতার NID কার্ডের কপি (শিশুদের ক্ষেত্রে আবশ্যিক)
  • নাগরিক সনদ / চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট
  • পেশাজীবী প্রমাণপত্র

নতুন পাসপোর্ট এর আবেদন করতে যে সকল কাগজপত্র প্রয়োজন হয় আশাকরি তা আপনার কাছে রয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে এখন আমরা ই পাসপোর্ট আবেদন করার জন্য প্রস্তুত।

ই পাসপোর্ট ফি

  • পাসপোর্টের পৃষ্ঠার সংখ্যা, পাসপোর্ট এর মেয়াদ এবং ডেলিভারির ধরন অনুসারে ই পাসপোর্ট ফি ভিন্ন ভিন্ন হয়। ই পাসপোর্ট এর ধরনের উপর ভিত্তি করে সর্বনিম্ন ৪০২৫ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১৩৮০০ টাকার মধ্যে ই পাসপোট ফি ধার্য করা হয়েছে।
  • উপরে উল্লেখিত ই-পাসপোর্ট সরকারি ফি ব্যতীত পাসপোর্ট অফিসে অতিরিক্ত আর কোন ফি নেই। তবে নিজে আবেদন করতে না পারলে কম্পিউটার দোকান থেকে বা অন্য কোথাও থেকে আবেদন করিয়ে নিতে ২০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা দিতে হয়।

ই পাসপোর্ট করতে কত টাকা লাগে?

৪৮ পৃষ্ঠার ৫ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট রেগুলার ডেলিভারিতে পেতে ৪০২৫টাকা, এক্সপ্রেস ডেলিভারি ৬৩২৫ টাকা ও সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারিতে ৮৬২৫ টাকার প্রয়োজন হয়। এরকমভাবে পাসপোর্ট এর পৃষ্ঠা সংখ্যা ডেলিভারির সময় এবং পাসপোর্ট এর মেয়াদের উপর ভিত্তি করে ই পাসপোর্ট ফি ভিন্ন হয়। কোন ধরনের ই-পাসপোর্ট ফি কত সেটি জানুন এখানে.

ই পাসপোর্ট স্ট্যাটাস চেক করতে যা যা লাগে?

  • অনলাইনে ই পাসপোর্ট স্ট্যাটাস চেক করার জন্য মাত্র দুইটি তথ্যের প্রয়োজন। প্রথমত আপনার পাসপোর্ট আবেদনের Application ID অথবা Online Registration ID তার সাথে পাসপোর্টে প্রদত্ত জন্মতারিখ।
  • Online Registration ID or
  • Application ID
  • Date of Birth

ই পাসপোর্ট স্ট্যাটাস চেক করার নিয়ম।

  • ই পাসপোর্ট চেক করার জন্য Bangladesh e-Passport Portal এর Status Check ভিজিট করে পাসপোর্ট আবেদনের Online Registration ID অথবা Application ID এবং জন্মতারিখ লিখে এই পাসপোর্ট স্ট্যাটাস জানুন।
  • https://www.epassport.gov.bd/authorization/application-status এই পেজটি ভিজিট করার পর পাসপোর্ট এর স্ট্যাটাস চেক করার জন্য কয়েকটি ইনপুট ফেল দেখতে পাবেন।
  • নিজের ছবিতে দেখানো নিয়মে যেখানে অ্যাপ্লিকেশন আইডি ইনপুট করার কথা সেখানে অ্যাপ্লিকেশন আইডি অথবা অনলাইন রেজিস্ট্রেশন আইডির স্থলে আপনার OID লিখুন। তারপর জন্ম তারিখের ঘরে জন্ম তারিখ এবং একটি সিকিউরিটি ক্যাপচা পূরণ করে Check বাটনে ক্লিক করুন।

চেক বাটনে ক্লিক করার পর আপনার পাসপোর্ট কি অবস্থায় রয়েছে অর্থাৎ স্ট্যাটাস দেখতে পাবেন। পাসপোর্ট এর কোন সমস্যা থাকলে সেটিও এখানে দেখাবে। একটি পাসপোর্ট আবেদন করা থেকে ডেলিভারি পর্যন্ত অনেকগুলো ধাপ অতিক্রম করে ঠিক ভাব অনুসারে আপনার স্ট্যাটাস দেখতে পাবেন।

আমি যেহেতু আমার পাসপোর্ট হাতে পেয়েছি তাই আমি যখন স্ট্যাটাস চেক করেছি তখন সেটি issued দেখাচ্ছে। নিচের ছবিটি লক্ষ্য করলে সেটি বুঝতে পারবেন। তবে আপনাদের নতুন আবেদন হলে সে ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন স্ট্যাটাস দেখতে পাবেন।

ই পাসপোর্ট চেক করার সঠিক নিয়ম।

  • পাসপোর্ট স্ট্যাটাস চেক করার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে Online Registration ID / Application ID এর যেকোনো একটি এবং জন্মতারিখ দিয়ে ই পাসপোর্ট চেক করুন। ই পাসপোর্ট স্ট্যাটাস জানার জন্য “Check” বাটনে ক্লিক করুন।
  • আপনার ই পাসপোর্ট এর স্ট্যাটাস চেক করার জন্য ছোট ছোট এবং খুবই সহজ কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করতে হবে। অনলাইনে ই পাসপোর্ট চেক করতে
  • e-passport website ভিজিট করুন
    OID (Online Registration ID) লিখুন: প্রথম ইনপুট ফিল্ডে আপনার পাসপোর্ট আবেদনের অনলাইন রেজিস্ট্রেশন আইডি অথবা
  • Application ID লিখুন: দ্বিতীয় ঘরে অ্যাপ্লিকেশন আইডি বসান। এই অ্যাপ্লিকেশন আইডিটি সাধারণত ডেলিভারি স্লিপে দেওয়া থাকে।
  • জন্ম তারিখ বাছাই করুন: পাসপোর্ট এর আবেদনে যে জন্ম দিয়েছেন সেটি এখানে বাছাই করুন।
  • ক্যাপচা পূরণ করুন: স্ট্যাটাস চেক করার পূর্বে সিকিউরিটি ক্যাপচা পূরণ করুন।
  • Passport Status Check করুন: সবশেষে নিচে Check বাটনে ক্লিক করে পাসপোর্ট স্ট্যাটাস দেখুন।

নিচের ফর্মে আপনার পাসপোর্ট আবেদনের Online Registration ID / Application ID এবং জন্ম তারিখ লিখে এ পাসপোর্ট চেক করতে পারেন।

Online Registration ID OID

  • অনলাইনে নতুন পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করলে কিংবা পাসপোর্ট রিনিউ করা হলে ১৩ ডিজিটের রেজিস্ট্রেশন আইডি তৈরি হয়। আর এই পাসপোর্ট আবেদনের ইউনিক আইডি কে Online Registration ID বা OID বলে। রেজিস্ট্রেশন আইডির প্রথমে OID থাকে (OID**)
  • ই পাসপোর্ট আবেদন কিংবা পাসপোর্ট রি-ইস্যু আবেদন সম্পন্ন করলে একটি অ্যাপ্লিকেশন সামারি দেওয়া হয়, যার মধ্যে আবেদনকারীর যাবতীয় তথ্য উল্লেখ থাকে। সেই Application Summary তে এই OID লিখা থাকে। তাছাড়া বারকোড আকারেও এই Online Registration ID দেওয়া থাকে।

Passport Application ID

  • Application ID ব্যবহার করেও পাসপোর্ট আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা চেক করা যায়। পাসপোর্ট এর অ্যাপ্লিকেশন আইডি ডেলিভারি স্লিপের উপরের অংশে লেখা থাকে।
  • আপনি যদি আপনার অ্যাপ্লিকেশন আইডি খুজে না পান তাহলে বাংলাদেশে ই পাসপোর্ট অফিসের ওয়েবসাইটে লগইন করে আপনার অ্যাপ্লিকেশন আইডি দেখে নিতে পারেন।

E Passport Check

  • অনলাইনে e passport check করার নিয়ম দেখে নিয়েছি। এখন আমরা দেখব SMS এর মাধ্যমে কিভাবে e Passport Status check করা যায়।
  • এসএমএস এর মাধ্যমে পাসপোর্টের স্ট্যাটাস দেখার জন্য প্রয়োজন হবে একটি মোবাইল ফোন, অ্যাপ্লিকেশন আইডি এবং জন্ম তারিখ।
  • মোবাইল ফোন (স্মার্ট / বাটন)
  • Application ID
  • জন্মতারিখ

SMS দিয়ে ই পাসপোর্ট চেক।

  • SMS এর মাধ্যমে ই পাসপোর্ট চেক করার জন্য মোবাইলের মেসেজ লিখার অপশনে চলে যান এবং EPP Application-ID টাইপ করে পাঠিয়ে দিন 16445 নাম্বারে।
  • ফিরতি মেসেজের মাধ্যমে আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হবে আপনার পাসপোর্ট আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা, আবেদনে কোন সমস্যা আছে কিনা এবং পাসপোর্ট কবে হাতে পাবেন।
  • অ্যাপ্লিকেশন আইডি 1234-56789548 এমন হলে আপনার এসএমএস লেখার ফরমেট হবে।

তারপর মেসেজটি পাঠিয়ে দিতে হবে এই 16445 নাম্বারে। 16445 নাম্বার থেকে এসএমএস করে জানিয়ে দেওয়া হবে আপনার আবেদনটি কি অবস্থায় রয়েছে ধন্যবাধ সকলকে।

Home Nid Service
E Passporthttps://www.nid-service.com/tag/e-passport/
5/5 - (2 votes)

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button